০৪:৫৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ০২ অক্টোবর ২০২৩

নিউইয়র্কে পানিতে ডুবে শ্যালক-ভগ্নিপতির মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিনিধি

নিউইয়র্কে পানিতে ডুবে শ্যালক-ভগ্নিপতির মৃত্যু

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে পানিতে ডুবে দুই বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আরও একজন অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। রোববার (২৮ আগস্ট) নিউইয়র্কের টাউন অব বেথেলের হোয়াইট লেকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

মৃতরা হলেন- কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার পেড্ডা গ্রামের রুহুল আমিনের বড় মেয়ের স্বামী আফরিদ হায়দার (৩৩) ও তার ছোট ছেলে বাছির আমিন (১৮)। জামাই আফরিদ হায়দারের গ্রামের বাড়ি নোয়াখালীতে।

নিউইয়র্কে বরুড়া উপজেলা অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক বদরুল হক আজাদ বলেন, শনিবার রুহুল আমিন পুরো পরিবার নিয়ে টাউন অব বেথেলে অবসর যাপনে যান। রোববার দুপুরে তার জামাই আফরিদ পাশের হোয়াইট লেকে গোসল করতে নামেন। এ সময় হঠাৎ আফরিদ পানিতে তলিয়ে যায়।

তিনি বলেন, ভগ্নিপতিকে বাঁচাতে শ্যালক বাছির এগিয়ে যায়। তাদের দুজনকে বাঁচাতে এগিয়ে যান রুহুল আমিনের ছোট মেয়ে নাছরিন। তবে তাদের কেউ জানতেন না পানি এত গভীর। সাঁতার না জানায় তলিয়ে যান তারা। লেকের পাড় থেকে মেয়ের জামাই, নিজের ছেলেমেয়েকে বাঁচাতে ঝাঁপিয়ে পড়েন রহুল আমিনের স্ত্রী রাহেলা আমিন।

মঙ্গলবার দুপুরে নিউইয়র্কের জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারে বাছির ও আফরিদের জানাজা হবে। তাদের দাফন করা হবে লং আইল্যান্ডে ওয়াশিংটন মেমোরিয়াল মুসলিম কবরস্থানে।

এ ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে বাংলাদেশ কমিউনিটিতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। কমিউনিটি নেতারা প্রবাসী বাংলাদেশিদের পানিতে নামার ক্ষেত্রে আরও সতর্ক হওয়ার আহ্বান জানান।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় : ০১:৪৮:২৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩০ অগাস্ট ২০২২
১৮৯ বার পড়া হয়েছে

নিউইয়র্কে পানিতে ডুবে শ্যালক-ভগ্নিপতির মৃত্যু

আপডেট সময় : ০১:৪৮:২৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩০ অগাস্ট ২০২২

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে পানিতে ডুবে দুই বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আরও একজন অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। রোববার (২৮ আগস্ট) নিউইয়র্কের টাউন অব বেথেলের হোয়াইট লেকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

মৃতরা হলেন- কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার পেড্ডা গ্রামের রুহুল আমিনের বড় মেয়ের স্বামী আফরিদ হায়দার (৩৩) ও তার ছোট ছেলে বাছির আমিন (১৮)। জামাই আফরিদ হায়দারের গ্রামের বাড়ি নোয়াখালীতে।

নিউইয়র্কে বরুড়া উপজেলা অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক বদরুল হক আজাদ বলেন, শনিবার রুহুল আমিন পুরো পরিবার নিয়ে টাউন অব বেথেলে অবসর যাপনে যান। রোববার দুপুরে তার জামাই আফরিদ পাশের হোয়াইট লেকে গোসল করতে নামেন। এ সময় হঠাৎ আফরিদ পানিতে তলিয়ে যায়।

তিনি বলেন, ভগ্নিপতিকে বাঁচাতে শ্যালক বাছির এগিয়ে যায়। তাদের দুজনকে বাঁচাতে এগিয়ে যান রুহুল আমিনের ছোট মেয়ে নাছরিন। তবে তাদের কেউ জানতেন না পানি এত গভীর। সাঁতার না জানায় তলিয়ে যান তারা। লেকের পাড় থেকে মেয়ের জামাই, নিজের ছেলেমেয়েকে বাঁচাতে ঝাঁপিয়ে পড়েন রহুল আমিনের স্ত্রী রাহেলা আমিন।

মঙ্গলবার দুপুরে নিউইয়র্কের জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারে বাছির ও আফরিদের জানাজা হবে। তাদের দাফন করা হবে লং আইল্যান্ডে ওয়াশিংটন মেমোরিয়াল মুসলিম কবরস্থানে।

এ ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে বাংলাদেশ কমিউনিটিতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। কমিউনিটি নেতারা প্রবাসী বাংলাদেশিদের পানিতে নামার ক্ষেত্রে আরও সতর্ক হওয়ার আহ্বান জানান।